Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর

শেরপুর, বগুড়া।

 

নাগরিক সনদ

( সিটিজেন চার্টার )

 

ভূমিকাঃ

        যুব সমাজ যে কোন দেশের মূল্যবান সম্পদ। জাতীয় উন্নয়ন ও অগ্রগতি যুব সমাজের সক্রিয় অংশগ্রহণের উপর অনেকাংশেই নির্ভরশীল। কারণ তাদের মেধা, সৃজনশীলতা, সাহস ও প্রতিভাকে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠে একটি জাতীয় অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিমন্ডল, পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও যুব সমাজ জাতির ভবিষ্যং কর্ণধর। নীতি নির্ধারক ও সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী। সুতরাং অসংহঠিত। কর্মপ্রত্যক্ষী। এই যুব গোষ্ঠিকে সুসংগঠিত, সুশৃংখল এবং উংপাদনমুখী শক্তিতে রুপান্তরের লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, শেরপুর, বগুড়া নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে হাচ্ছে। জাতীয় যুব নীতি অনুসারে বাংলাদেশের ১৮-৩৫ বৎসরের জনগোষ্ঠিকে যুব হিসাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে।

 

লক্ষ্যঃ

·        অনুৎপাদনশীল যুব সমাজকে সুসংগঠিত, সুশৃংখল এবং উৎপাদনমুখী শক্তিতে রুপান্তর করা।

·        দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে  যুবদের কর্মসংস্থান কিংবা আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিত করা।

·        জাতীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডে বেকার যুবদের সম্পৃক্ত করা।

 

উদ্দেশ্যঃ

·        উদ্বুদ্ধকরণ, প্রশিক্ষণ, ক্ষুদ্র্ঋণ এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সহায়তার মাধ্যমেযুবদের কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থা্নে নিয়োজিত করাসহ দেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়ার প্রতিটি স্তরে সম্পৃক্ত করা।

·        বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী যুব সংহঠনের মাধ্যমে গোষ্ঠি উন্নয়নে সহায়তা করার জন্য যুবদের বিভিন্ন গ্রুপে সংগঠিত করা।

·        উপজেলা পর্যায়ে যুব সংগঠনের সংখ্যা বৃদ্ধি করা এবং অংশগ্রহণ মূলক উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় তাদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।

·        যুবদের গণশিক্ষা কার্যক্রম দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, প্রশিক্ষণ, স্বাস্থ্য পরিচর্যা, পরিবেশ উন্নয়ন, সম্পদ সংরক্ষণ ইত্যাদি আর্থ-সামাজিক কার্যকলাপে সম্পৃক্তকরণ এবং সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার এইচআইভি/

এইডস এবং এসটিডি বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করা।

·        যুবদের ক্ষমতায়নের নিমিত্তে আত্মকর্মস্থানমূলক প্রকল্প স্থাপন এবং সিদ্ধান্ত  গ্রহণমূলক প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের 

     সুযোগ দানের লক্ষ্যে তাদেরকে দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ, আত্মকর্মসংস্থান ও ক্ষদ্রঋণ সহায়তা প্রদানের     

     প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

যুব উন্নয়ন দপ্তরের কার্যক্রমঃ

          যুব সমাজকে সুশৃংখল ও সুসংগঠিত করে জাতীয় উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত করণ এবং সঠিক দিক নির্দেশনা, জ্ঞান ও দক্ষতা প্রদানের মাধ্যমে মানব সম্পদে পরিণত করার লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে নিম্নবর্ণিত কর্মসূচী চালু রয়েছেঃ

          ১

( ক) ২ -- মাস মেয়াদী গবাদী পশু হাঁস-মুরগী পালন, মৎস্য চাষ ও কৃষি বিষয়ক প্রপিক্ষণ কোর্স।

          ২

(খ) ০১( এক) মাস মেয়াদী মৎস্য চাষ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(গ) পেবষাক তৈরী প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(ঘ) ইলেকট্রিক এন্ড হাউজওয়্যারিং প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(ঙ) রেফিজারেশন এন্ড এয়ার কন্ডিশনিং প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(চ) বেসিক কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(ছ) কম্পিউটার গ্রাফিক্স ও ভিডিও সম্পাদনা প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(জ) মুরগী পালন  এবং বার্ড ফ্লু প্রতিরোধ ও জীব নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কোর্স ।

(ঝ) কমিউনিকেটিভ ইংলিম ল্যাংগুয়েজ কোর্স ।

(ঞ) মর্ডাণ অফিস ম্যানেজমেন্ট এন্ড কম্পিউটার এ্যাপ্লিকেশন প্রশিক্ষণ কোর্স ।

 

          এছাড়া উপজেলা পর্যায়ে ০৭ দিন ব্যাপী বিভিন্ন বিষয়ের অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্স চালু রয়েছে।

 

          প্রশিক্ষিত যুবদের আত্মকর্মসংস্থান কর্মসূচীঃ প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবদের মোটিভেশনের ও আর্থিক সহায়তা দিয়ে আত্মকর্মী হিসাবে গড়ে তোলা হয় ।

 

যুব ঋণ  কর্মসূচীঃ

 

ঋণ কর্মসূচী ২ ধরণেরঃ

(ক) গ্রুপ ভিত্তিক ঋণ কর্মসূচীঃ এই কর্মসূচীর আওতায় বেকার যুবদের পারিবারিক গ্রুপে সংগঠিত করে ঋণ প্রদান করা হয় । প্রতি গ্রুপের সদস্য ৫ জন। গ্রুপের প্রত্যেক সদস্যকে প্রাথমিক পর্যায়ে ৮,০০০/- থেকে ১৬,০০০/- টাকা ঋণ বিতরণ করা হয় ।

 

(খ) একক ঋণ কর্মসূচীঃ এ কর্মসূচীর আওতায় প্রাতিষ্ঠারিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক কোর্সে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবদের একক ঋণ প্রদান করা হয়। প্রত্যেক সদস্যকে সর্বনিম্ন ১০,০০০/- এবং সর্বোচ্চ  ৫০,০০০/- টাকা করে ঋণ প্রদান করা হয় ।